বায়ুদূষণ ঠেকাতে ব্যবস্থা

সাম্প্রতিক সময়ে এক প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, রাজধানী ঢাকার বাতাস এখন জনস্বাস্থ্যের জন্য বড় হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান আইকিউ এয়ার গত রবিবার থেকে টানা ৬ দিন ঢাকার বায়ুর মান আরো খারাপ হওয়ার পূর্বাভাস দিয়েছে। তাদের তথ্য মতে, গত শনিবার ঢাকায় বায়ুদূষণের মাত্রা ছিল ১২৮ ইউএস একিউআই (এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স); রবিবার যা হতে পারে ১৫১ ইউএস একিউআই, সোমবার ১৫৭ ইউএস একিউআই, মঙ্গলবার ও বুধবার ১৬১ ইউএস একিউআই, বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার থাকতে পারে ১৬২ ইউএস একিউআই।
আইকিউ এয়ার ১৫০ ইউএস একিউআই পর্যন্ত বায়ুদূষণকে নির্দিষ্ট গ্রæপের জন্য অস্বাস্থ্যকর বলছে, কিন্তু ১৫০ ইউএস একিউআই হলে তা পুরোপুরি অস্বাস্থ্যকর হিসেবে চিহ্নিত করে তারা। বায়ুর এ ধরনের মান থাকলে যে কেউ অসুস্থ হয়ে পড়তে পারে। বৃদ্ধ, শিশু, শ্বাস-প্রশ্বাসের রোগে ভোগা ব্যক্তিসহ সবাইকে বাড়ির বাইরে বের হওয়ার ক্ষেত্রে চিন্তা-ভাবনার পরামর্শ দিয়েছে আইকিউ এয়ার।
ঢাকার বায়ুদূষণ নিয়ে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা বারবারই সতর্ক করেছে। দূষণ ঠেকাতে যেসব আইন আছে, সেগুলো না মানার কারণে ঢাকার দূষণ দৃশ্যমান হচ্ছে। নীতিমালার তোয়াক্কা না করে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে চলছে সড়ক খনন। নগরীর অলিগলি খোঁড়াখুঁড়ির সময় কোনো ধরনের নিয়ম অনুসরণ করা হচ্ছে না। উন্মুক্ত স্থানে বালু, মাটি, পাথরসহ অন্যান্য নির্মাণপণ্য খোলা রাস্তায় ফেলে রাখায় সৃষ্টি হচ্ছে বায়ুদূষণ। রাজধানীতে নেয়া মেগা প্রকল্পগুলোর আওতায় সড়কে কাটাকাটি চলছেই।
আমরা ভেজাল খাদ্য খাই। এমন কোনো একটি খাদ্য, পণ্য নেই যাতে ভেজালের অস্তিত্ব নেই। বেশি দিন ধরে পচন ঠেকাতে খাদ্যপণ্যে এমন সব রাসায়নিক দ্রব্য মেশানো হচ্ছে, যা খেলে স্বাস্থ্যঝুঁকি বৃদ্ধি পাওয়া খুব স্বাভাবিক। গাড়ির কালো ধোঁয়ায় আমরা প্রতিনিয়ত আক্রান্ত হচ্ছি। প্রকাশ্যে ধূমপান দণ্ডনীয় অপরাধ হলেও সর্বত্র প্রকাশ্যে ধূমপান চলছে। এতে অধূমপায়ীরাও ধূমপানের ক্ষতির শিকার হচ্ছে। এর সঙ্গে এখন যোগ হয়েছে ধুলাদূষণ। কোথাও বুক ভরে নিশ্বাস নেয়ারও উপায় নেই।
কিন্তু কোনো কিছুতেই যেন রোধ করা যাচ্ছে না নগরীর ধুলাদূষণ। ফলে এর বিরূপ প্রভাব দিন দিন প্রকট হয়ে উঠছে। বায়ুদূষণের কারণে শ্বাসকষ্টের রোগীর সংখ্যা বেড়েছে সবচেয়ে বেশি। পাশাপাশি অ্যাজমা, সিওপিডি (ক্রনিক অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ, শ্বাসকষ্টজনিত রোগ), এলপিডি (লিম্ফোপ্রোলিফারেটিভ ডিজিজ) ইত্যাদি রোগও দেখা দিচ্ছে। বায়ুদূষণের কারণে ঢাকা শহরে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরির পাশাপাশি স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস বিঘ্নিত হচ্ছে। দেখা দিচ্ছে নানা শারীরিক জটিলতা। এ থেকে মুক্তি পেতে হলে অবিলম্বে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে।

সহসভাপতি, এফবিসিসিআই।
dilipagorola@gmail.com

The post বায়ুদূষণ ঠেকাতে ব্যবস্থা appeared first on Bhorer Kagoj.

0 Comments

There are no comments yet

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × 2 =

Back to top